• header_en
  • header_bn

 

Corruption increases poverty and injustice. Let's fight it together...now

 

নাগরিক ঐক্য’’ আয়োজিত সভায় টিআইবি’র ট্রাস্টি বোর্ডের প্রাক্তন চেয়ারপারসন এম. হাফিজউদ্দিন খান এর বক্তব্য তাঁর ব্যক্তিগত, টিআইবি’র নয়

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

 ‘‘নাগরিক ঐক্য’’ আয়োজিত সভায় টিআইবি’র ট্রাস্টি বোর্ডের প্রাক্তন চেয়ারপারসন এম. হাফিজউদ্দিন খান এর বক্তব্য তাঁর ব্যক্তিগত, টিআইবি’র নয়

ঢাকা, ৮ জুলাই ২০১২: গতকাল শনিবার জাতীয় প্রেসক্লাবে ‘‘নাগরিক ঐক্য আয়োজিত’’ ‘নাগরিক সমাজ, গণতন্ত্র ও মৌলিক অধিকার প্রতিষ্ঠায় ঐক্যবদ্ধ হোন’ শীর্ষক আলোচনা সভায় ‘‘রাজনীতিতে তৃতীয় শক্তির উত্থান’’ সম্পর্কিত বিভিন্ন সংবাদপত্রে প্রকাশিত সংবাদ ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) এর দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে। উক্ত আলোচনা সভায় টিআইবি’র প্রাক্তন চেয়ারপারসন এম. হাফিজউদ্দিন খান যে বক্তব্য দিয়েছেন তা সম্পূর্ণই তাঁর ব্যক্তিগত, এর সাথে টিআইবি’র কোন সম্পর্ক নেই। 

বিবৃতিতে এম হাফিজউদ্দিন খান বলেন,‘‘উক্ত অনুষ্ঠানে আমি টিআইবি’র প্রতিনিধি হিসেবে বা টিআইবি’র সাথে আমার সম্পৃক্ততার সূত্রে অংশগ্রহণ করিনি, দেশের একজন নাগরিক হিসেবে আমার অভিমত প্রকাশ করেছি। এর সাথে টিআইবিকে সম্পৃক্ত করা কোন অবস্থায়ই যুক্তিযুক্ত নয়। কোন কোন পত্রিকায় আমাকে উক্ত অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি বলা হয়েছে, তাও সঠিক নয়। আমি বক্তবেশু শুরুতে এটি পরিষ্কারভাবে উল্লেখ করেছি যে, ‘‘নাগরিক ঐক্য’’ এর উদ্যোগের প্রতি শুভকামনা জানাতে আমার ব্যক্তিগত অবস্থান থেকেই অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছি।’’

টিআইবি’র নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, ‘‘টিআইবি’র সকল কার্যক্রম কোন দলীয় বা সক্রিয় রাজনীতির ঊর্ধে, সম্পূর্ণ নিরপেক্ষ ও বস্তুনিষ্ঠ। সরকারের যথাযথ কর্তৃপক্ষের অনুমোদনক্রমে টিআইবি’র উদ্যোগে প্রতিষ্ঠিত সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক) ও ইয়ুথ এনগেজমেন্ট  অ্যান্ড সাপোর্ট (ইয়েস) প্রায় এক দশক ধরে টিআইবি’র সাথে সম্পৃক্ত আছে। তাঁদের কেউ কোন প্রকার দলীয় রাজনৈতিক উদ্যোগ, আদর্শ বা অবস্থানের পক্ষে বা বিপক্ষে নয়।”

তিনি আরো বলেন,‘‘উক্ত অনুষ্ঠানে কয়েকটি বেসরকারি সংগঠনের সাথে টিআইবি’র নাম যেভাবে উদ্যোক্তাদের পক্ষ থেকে উল্লেখ করা হয়েছে তা তাঁদের সম্পূর্ণ ব্যক্তিগত অভিমত, তার সাথেও টিআইবি’র কোন সম্পৃক্ততা নেই।”

বিবৃতিতে আরো বলা হয়,‘‘টিআইবি আশা করে  যে, উক্ত উদ্যোগের প্রেক্ষিতে সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদনের ফলে টিআইবি’র সর্বজনবিদিত দল-নিরপেক্ষ অবস্থান সম্পর্কে কোন প্রকার ভুল ধারনার সৃষ্টি হবে না।”