• header_en
  • header_bn

সরকারি প্রকল্পের নির্মাণ কাজে পরিবেশবান্ধব ব্লকের ব্যবহার বাধ্যতামূলক ঘোষণা উৎসাহব্যঞ্জক; কার্যকর প্রয়োগ এবং বেসরকারি খাতের জন্যও একই সিদ্ধান্ত চায় টিআইবি

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি
 
সরকারি প্রকল্পের নির্মাণ কাজে পরিবেশবান্ধব ব্লকের ব্যবহার বাধ্যতামূলক ঘোষণা উৎসাহব্যঞ্জক; 
কার্যকর প্রয়োগ এবং বেসরকারি খাতের জন্যও একই সিদ্ধান্ত চায় টিআইবি
 
ঢাকা, ১৯ ডিসেম্বর ২০১৯: সরকারি সকল প্রকল্পের নির্মাণ কাজে ইট ভাটায় উৎপাদিত ইটের পরিবর্তে পরিবেশবান্ধব ব্লক উৎপাদন ও ব্যবহারকে আংশিকভাবে বাধ্যতামূলক এবং পর্যায়ক্রমে ২০২৪-২০২৫ অর্থবছরের মধ্যে তা ১০০ শতাংশে উন্নীত করার সরকারের ঘোষণাকে উৎসাহব্যঞ্জক মনে করছে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)। তবে দূষণ মোকাবেলায় কাক্সিক্ষত লক্ষ্য অর্জনে এ সিদ্ধান্তের কার্যকর প্রয়োগ এবং একইসাথে বেসরকারি সব নির্মাণ কার্যক্রমেও পরিবেশবান্ধব ব্লকের ব্যবহার বাধ্যতামূলক করার দাবি জানাচ্ছে সংস্থাটি। 
আজ প্রকাশিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, বাংলাদেশে বায়ু দূষণ যে মাত্রায় পৌঁছেছে তা থেকে দেশের পরিবেশ ও নাগরিকদের সুরক্ষা প্রদানে পরিবেশ বান্ধব ব্লক ব্যবহারের এ সিদ্ধান্ত উৎসাহব্যঞ্জক। তবে এর সুফল কতটুকু পাওয়া যাবে তা নির্ভর করে এই সিদ্ধান্তের কার্যকর প্রয়োগের ওপর। তাছাড়া, এখনই সব ধরনের সরকারি বেসরকারি কাজে পোড়ামাটির ইটের ব্যবহার নিষিদ্ধ করে বায়ুমান উন্নয়নে পরিবেশবান্ধব সব ধরনের ইট ও নবায়নযোগ্য জ¦ালানির ব্যবহার নিশ্চিতে দ্রুত পদক্ষেপের বিকল্প নেই। ড. জামান মনে করেন, প্রচলিত ইট ভাটার বায়ু দূষণ ও পরিবেশগত বিপর্যয়ের ক্ষতি মোকাবেলার পাশাপাশি ইট উৎপাদনে কর্মরত শ্রমিকদের অমানবিক জীবন রক্ষায় ভাটাগুলো বন্ধে অনতিবিলম্বে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ এবং দ্রুততম সময়ে তা বাস্তবায়নে সমন্বিত উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে। 
ড. জামান মনে করেন, নতুন সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সরকারি প্রকল্পে ভাটা ইটের ব্যবহার কমবে মাত্র ৩০ শতাংশ যার মাধ্যমে দূষণ নিয়ন্ত্রণ কাক্সিক্ষত পর্যায়ে অর্জিত হবে না। শুধু তাই নয়, বেসরকারি নির্মাণ খাতে পরিবেশবান্ধব ব্লক ব্যবহার আইন করে বাধ্যতামূলক করা না হলে এবং ভাটায় পোড়ানো ইটের তুলনায় পরিবেশবান্ধব ব্লক উৎপাদন, সরবরাহ এবং ব্যবহারে প্রণোদনা প্রদানে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ না করলে বায়ু দূষণ মোকাবেলায় সরকারি এই সিদ্ধান্ত প্রত্যাশিত ফল প্রদান নাও করতে পারে বলে আশঙ্কা করেন ড. জামান। 
সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশের বায়ু দূষণ পরিস্থিতির উদ্বেগজনক অবনতিতে রাজধানী ঢাকা বিশে^র শীর্ষস্থানীয় দূষিত বায়ুর শহরে পরিণত হয়েছে এবং বায়ু দূষণের ব্যাপ্তি ঢাকা নগরী ছাড়িয়ে অন্যান্য শহরগুলোতেও বিস্তারের প্রেক্ষিতে জনস্বাস্থ্যের চরম অবনতির ঝুঁকি সৃষ্টি হয়েছে। বিশেষ করে, শীতকাল তথা শুষ্ক মৌসুমে বায়ু দূষণের প্রধান উৎস চুল্লিভিত্তিক ইট ভাটা এবং অপরিকল্পিত উন্নয়ন কার্যক্রমসমূহ দায়ী। বায়ু দূষণের মাধ্যমে ক্রমবর্ধমান পরিবেশ বিপর্যয় ও জনস্বাস্থ্যের হুমকি মোকাবেলায় তাই সরকারি এবং বেসরকারি সকল নির্মাণ কাজে পরিবেশবান্ধব ব্লক ব্যবহারকে অনতিবিলম্বে বাধ্যতামূলক ঘোষণা করে চুল্লিভিত্তিক সকল ইট ভাটা নিষিদ্ধ করার পাশাপাশি পরিবেশবান্ধব ব্লক উৎপাদন ও বাজারজাতকরণে সমন্বিত, কার্যকর ও প্রণোদনামূলক নিয়ন্ত্রণ কাঠামো প্রণয়নের জোর দাবি জানায় টিআইবি।    
 
গণমাধ্যম যোগাযোগ,
 
শেখ মনজুর-ই-আলম 
পরিচালক
আউটরিচ অ্যান্ড কমিউনিকেশন বিভাগ
মোবাইল: ০১৭০৮৪৯৫৩৯৫
ই-মেইল: This email address is being protected from spambots. You need JavaScript enabled to view it.