• header_en
  • header_bn

 

Corruption increases poverty and injustice. Let's fight it together...now

 

TIB expresses concern over increasing violence and loss of lives- Demands independent judicial probe (Bangla)

ক্রমবর্ধমান সহিংসতা ও প্রাণহানিতে টিআইবির গভীর উদ্বেগ

৬ মের ঘটনার উপর শ্বেতপত্র ও নিরপেক্ষ বিচারিক তদন্তের দাবী

ঢাকা, ০৯ মে ২০১৩: সমপ্রতি ক্রমবর্ধমান সহিংসতা ও তৎজনিত মৃত্যু এবং জনজীবনে নিরাপত্তাহীনতা সৃষ্টি হওয়ার ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে টান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) সকল পক্ষকে সংযম প্রদর্শন এবং  গণতান্ত্রিক মূল্যবোধ ও চর্চা অব্যাহত রাখার আহ্বান জানিয়েছে। একইসাথে টিআইবি ৫ ও ৬ মের ঘটনাবলীর উপর শ্বেতপত্র প্রকাশ ও নিরপেক্ষ বিচারিক তদন্তের মাধ্যমে দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানিয়েছে।

আজ এক বিবৃতিতে টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, “গত ৫ ও ৬ মে হেফাজতে ইসলামের সমাবেশকে কেন্দ্র করে সংঘটিত সহিংসতার কারণে হতাহতের এবং জনসম্পত্তি বিনষ্টের ঘটনায় আমরা স্তম্ভিত এবং গভীরভাবে উদ্বিগ্ন। সমাবেশ থেকে বহুমুখী অরাজকতার মাধ্যমে যেভাবে সহিংসতার পরিবেশের সৃষ্টি করা হয় তা গণতান্ত্রিক কাঠামোতে মত প্রকাশ ও অধিকার চর্চার সুযোগের আড়ালে উগ্র, অগণতান্ত্রিক ও ধ্বংসাত্বক এবং স্বাধীনতার চেতনা ও মূল্যবোধের পরিপন্থী। এধরনের কর্মকান্ড দেশের গণতান্ত্রিক অগ্রযাত্রার জন্য অশনি সংকেতসম। আমরা ৫ ও ৬ মে সংঘটিত সকল ধরনের সহিংসতা ও উগ্র কর্মকান্ডের তীব্র নিন্দা জানাই এবং সম্পূর্ণ নিরপেক্ষ ও উচ্চক্ষমতা সম্পন্ন বিচারিক তদন্তের মাধ্যমে দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী করি।

অন্যদিকে মতিঝিলের শাপলা চত্বর থেকে সমাবেশকারীদের অপসারণে ৬ মে মধ্যরাতের পর থেকে ভোর পর্যন্ত আইন-শৃংখলা রক্ষাবাহিনী যে অভিযান পরিচালনা করেছিল তার স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে এবং উক্ত অভিযানে হতাহত সংক্রান্ত গুজবের অবসানে সরকারকে দ্রুত শ্বেতপত্র প্রকাশের আহ্বান জানাই।তিনি আরো বলেন, “হতাহতের সংখ্যা সহ এরূপ ঘটনাকে কেন্দ্র করে যে কোন ধরনের গুজব আরোও সহিংসতার ইন্ধন জুগিয়ে আইনের শাসনের পরিপন্থী এবং গণতন্ত্রের জন্য আরোও ক্ষতিকর পরিসি'তি সৃষ্টি করতে পারে। আইন-শৃংখলা রক্ষা বাহিনীর কার্যক্রমের বিশ্বাসযোগ্যতা প্রতিষ্ঠিত করতে হলে গুজবের বিস্তার রোধে স্বচ্ছতার কোন বিকল্প নেই। স্বচ্ছতার ঘাটতির কারনে কোন কোন আন্তর্জাতিক মহল থেকে অযাচিতভাবে উদ্বেগপূর্ণ নেতিবাচক প্রচারনা শুরু হয়েছে, যার নিরসনে সৎ ও নির্ভরযোগ্যভাবে প্রকাশিত শ্বেতপত্র গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে।

ড. জামান বলেন, “আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইবুনাল কর্তৃক মানবতাবিরোধী অপরাধের বিচারের রায় প্রকাশিত হওয়ার পর থেকে এ পর্যন্ত সংঘটিত যে কোন মৃত্যু ও সহিংসতার ঘটনায় যারাই জড়িত থাকুক না কেন তাদের সকলকে অনতিবিলম্বে বিচারের কাঠগড়ায় দাঁড় করাতে সরকারকে দৃঢ়োচিত মনোভাব প্রদর্শন এবং যথাযথ আইনি প্রক্রিয়া অনুসরণ করতে  হবে।

বিরাজমান সংঘাতময় অবস্থার অবসানে ড. জামান আবারো দুটি প্রধান রাজনৈতিক দলের মধ্যে গঠনমূলক ও ইতিবাচক সংলাপের আহ্বান জানিয়ে বলেন, “গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়া অব্যাহত রাখা এবং জবাবদিহিমূলক সুশাসন প্রতিষ্ঠার স্বার্থে দুই বৃহৎ দলের মধ্যে মৌলিক বিষয়ে ঐকমত্য প্রতিষ্ঠার কোন বিকল্প নেই। সংঘাতময় পরিসি'তি শুধুমাত্র উগ্র ও অগণতান্ত্রিক শক্তির বিকাশের সুযোগ সৃষ্টি করছে। এর নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থ হলে দেশের আপামর জনগণের গণতান্ত্রিক প্রত্যাশা বিপর্যস্ত হবে, যার দায় দুই বৃহৎ দলকেই নিতে হবে।

Media Contact