• header_en
  • header_bn

 

Corruption increases poverty and injustice. Let's fight it together...now

 

TIB strongly condemns police atrocities during protest-gathering, demands strong punishment through judicial inquiry (Bangla)

প্রতিবাদ সমাবেশে পুলিশের নির্লজ্জ অমানবিক হামলায় টিআইবি’র তীব্র ক্ষোভ ও ঘৃণা প্রকাশ
বিচারবিভাগীয় তদন্তের মাধ্যমে দোষীদের কঠোর শাস্তির দাবি
ঢাকা, ১১ মে ২০১৫: বাংলা বর্ষবরণের দিন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে নারী নিপীড়ক ও লাঞ্ছনাকারীদের গ্রেফতার ও শাস্তির দাবিতে গতকাল রোববার একটি ছাত্র সংগঠন কর্তৃক আয়োজিত প্রতিবাদ সমাবেশে, বিশেষকরে তরুণ ছাত্রীদের উপর পুলিশের ন্যাক্কারজনক বর্বরোচিত হামলার ঘটনায় তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) অনতিবিলম্বে বিচারবিভাগীয় তদন্তপূর্বক দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিতকরণে সরকারের প্রতি জোরালো আবেদন জানিয়েছে।
আজ এক বিবৃতিতে টিআইবি’র নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, “একটি শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদ ও ন্যায্য দাবি আদায়ে আয়োজিত সমাবেশে পুলিশের একাংশের পৈশাচিক তান্ডব এবং জেন্ডার অসংবেদনশীল আচরণ থেকে এটি সুস্পষ্ট যে রাজনৈতিক শিখন্ডি হিসেবে ধারাবাহিকভাবে ব্যবহৃত হওয়ার ফলে বাংলাদেশের পুলিশ এখন নিজেদেরকে সকল আইনের উর্ধ্বে হিসেবে ভাবতে শুরু করেছে, যা আইনের শাসন ও গণতান্ত্রিক অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য অশনিসংকেত হিসেবে প্রতিভাত হচ্ছে।”
. জামান আরো বলেন, বাংলা বর্ষবরণের দিন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অর্পিত দায়িত্ব পালনে চরমভাবে ব্যর্থ আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা-বাহিনী নারী নিপীড়ন প্রতিকারের স্থলে নিরব দর্শকের ভূমিকা পালন করেছিল। অন্যদিকে গতকাল এই ঘটনায় দোষীদের বিচারের দাবিতে গণতান্ত্রিকভাবে আন্দোলনরত ছাত্র-ছাত্রীদের নির্মমভাবে দমনে অমানবিক ভূমিকা পালন করে এই বাহিনী তার ভাবমূর্তি চরমভাবে ক্ষুন্ন করেছে। যেখানে বাংলাদেশের সংবিধানে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী কর্তৃক নির্যাতন, অমানবিক এবং লাঞ্ছনাকর আচরন নিষিদ্ধ করা হয়েছে এবং সংশ্লিষ্ট আইন অনুযায়ী যেখানে পুলিশের এ জাতীয় আচরণ শাস্তিযোগ্য অপরাধ, সেখানে সরকারি কাজে বাধা প্রদানের ঠুনকো অজুহাত দেখিয়ে আইনের রক্ষকের আইনের ভক্ষক হয়ে উঠা পুলিশ বাহিনীর গৌরবময় ঐতিহ্যের জন্য ভয়ানক কলঙ্কজনক। তদুপরি, এরূপ নির্লজ্জ আচরনকারী পুলিশ সদস্যদের পক্ষে পুলিশের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাফাইয়ের বিষয়টি আরো গভীরভাবে উদ্বেগজনক।
পুলিশের সকল কর্মকান্ডের স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা, নৈতিকতা এবং সর্বোপরি হৃত জন-আস্থা পুনরুদ্ধারে ড. জামান অনতিবিলম্বে বিচার-বিভাগীয় তদন্তের মাধ্যমে দায়ী পুলিশ সদস্যদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের আহ্বান জানান। সনাতন পদ্ধতিতে তথাকথিত ‘ক্লোজড’ করা বা সাময়িক বরখাস্তের মত লোক-দেখানো পদক্ষেপ যথেষ্ঠ নয়। দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির মাধ্যমে পুলিশ বাহিনীতে শৃঙ্খলা, পেশাদারিত্ব, আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীলতা ও জেন্ডার সংবেদনশীলতা প্রতিষ্ঠা ব্যাতিত গণতান্ত্রিক সুশাসন প্রতিষ্ঠা অসম্ভব।

Media Contact