• header_en
  • header_bn

 

Corruption increases poverty and injustice. Let's fight it together...now

 

Shun the path of violence and use of force: Leave the people in peace - TIB

Dhaka, 20 January 2015: Transparency International Bangladesh (TIB) has expressed deep concern over the on-going inhuman and cruel manifestation of violence and use of force in an unhealthy competition for power at the cost of basic rights of the people and prospect of democracy and good governance. TIB has called for shunning the path of violence, use of force and undemocratic means and to adopt peaceful ways of bridging differences and move towards mutual understanding.
In a statement issued today Iftekharuzzaman, Executive Director of TIB said, “by indulging in an unhealthy competition and show of force in the name of democracy the two largest parties are crushing basic rights of the people, particularly children, women and the youth. People are being deprived of the whole range of fundamental rights starting from right to life to right of normal death. Having locked themselves in a zero-sum game of power, our political parties and leaders are not only exposing their political bankruptcy, but also expanding their distance from the people and public interest on a daily basis. Independence and professionalism of key institutions of rule of law and democratic accountability, particularly the law enforcement agencies are being severely compromised. These are an extremely high-risk game for democracy and good governance”.
He said, “political freedoms such as right of assembly, rallies, human chains, etc., are fundamental to democracy and democratic practice. However, violent programmes in the name of movement putting people’s life and living at risk are absolutely unacceptable in any democratic society. On the other hand, the way the law enforcement agencies like Police, RAB and BGB have threatened use of disproportionate force and are apparently acquiring licence to become law-breakers is inconsistent with the spirit of our independence achieved thanks to highest sacrifice of millions of martyrs. These also expose the political space to militant and undemocratic forces to gain ground”.
The statement further said, “in this crisis situation efforts to reach mutual understanding between our two top leaders are indispensable in the interest of the people. The key to overcoming the crisis and restore normalcy in public life are in the hands of the two top leaders. At the same time senior leaders in both camps must also shun the confrontational path and practice restraint. Time is now to demonstrate that politics is truly about public interest, and not to undermine people’s basic rights; and that politics is not for a zero-sum game by use of force, which can be suicidal for democracy”.  
“The on-going violence is not only undermining prospects of democracy and governance, but also causing extreme forms of damage to democratic institutions. Politics is being presented to the people at large, especially the young generation and school and college students, as a synonym for violence, violation of rights, destruction and death. By sowing seeds of apathy towards politics, the worst enemy for politics is being created from within the political space”, Iftekharuzzaman said.
“There are no winners in such forms of political activism and practice except for undemocratic, militant and violent forces who may gain further ground. Not merely in the interest of the people, but also for their self-interest the two confronting sides must find peaceful ways and means for political game and leave the people in peace,” the statement said.

 

সহিংস, অমানবিক, অগণতান্ত্রিক পথ পরিহার করার আহ্বান টিআইবির
ঢাকা, ২০ জানুয়ারি ২০১৫: ক্ষমতা কেন্দ্রিক রাজনৈতিক সহিংসতা ও বলপ্রয়োগের অসুস্থ প্রতিযোগিতা যে অমানবিক ও নৃশংস রূপ ধারণ করেছে, যেভাবে সাধারণ নাগরিকের মৌলিক অধিকার হরণ হচ্ছে এবং যেভাবে দেশে সুশাসন ও গণতান্ত্রিক অগ্রযাত্রার পথে ঝুঁকি বাড়ছে তাতে গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)। এ পরিস্থিতিতে সকল প্রকার বলপ্রয়োগ, সহিংস ও অগণতান্ত্রিক আচরণ পরিহার করে শান্তিপূর্ণ উপায়ে সমঝোতার পথ অনুসন্ধানের আহ্বান জানিয়েছে টিআইবি।
আজ এক বিবৃতিতে টিআইবি’র নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, “গণতন্ত্রের নামে দেশের প্রধান দুই রাজনৈতিক পক্ষ শক্তি প্রদর্শন ও বল প্রয়োগের প্রতিযোগিতায় অবতীর্ণ হওয়ায় শিশু, নারী ও তরুণসহ সাধারণ মানুষের মৌলিক অধিকার নিষ্ঠুরভাবে খর্ব হচ্ছে। জনগণের স্বাভাবিক জীবন যাপন থেকে শুরু করে স্বাভাবিক মৃত্যুর অধিকার ভূলুন্ঠিত হচ্ছে। এক পক্ষ যে কোনো মূল্যে ক্ষমতায় টিকে থাকতে, অন্য পক্ষ যেকোন প্রক্রিয়ায় ক্ষমতায় যেতে মরিয়া হয়ে জনগণ থেকে নিজেদের বিচ্ছিন্ন করছেন। রাজনৈতিক দেউলিয়াপনার দৃষ্টান্ত স্থাপন করছেন। আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীসহ জবাবদিহিতা ও আইনের শাসনের মৌলিক প্রতিষ্ঠানগুলোর নিরপেক্ষতা ও পেশাদারিত্ব ভূলুন্ঠিত হচ্ছে। যা দেশের গণতন্ত্র ও সুশাসনের সম্ভাবনার জন্য চরম ঝুঁকিপূর্ণ।”
তিনি বলেন, “জনসভা, মিছিল ও মানববন্ধনসহ সকল শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি সকল নাগরিক ও সংগঠনের গণতান্ত্রিক অধিকার। তবে সাধারণ মানুষের জীবনকে বিপন্ন করে আন্দোলনের নামে একদিকে সহিংস কর্মসূচি এবং অন্যদিকে পুলিশ, বিজিবি ও র‌্যাবের মতো আইন প্রয়োগকারী সংস্থা কর্তৃক আইনের ভক্ষকের ভূমিকায় অবতীর্ণ হবার হুমকি যেমন লাখো শহীদের রক্তে অর্জিত স্বাধীনতার চেতনার পরিপন্থী তেমনি রাজনৈতিক অঙ্গনে উগ্র অগণতান্ত্রিক শক্তির বিকাশের চাবিকাঠি।”
তিনি আরো বলেন, “বর্তমান সংকটময় পরিস্থিতিতে গণতন্ত্র ও সাধারণ মানুষের স্বার্থরক্ষায় দুই নেত্রীর মধ্যে পারস্পারিক সমঝোতা অর্জন অত্যন্ত জরুরি। সংকট থেকে উত্তরণের চাবিকাঠি দুই নেত্রীর হাতেই রয়েছে। একইসাথে উভয় পক্ষের নেতৃস্থানীয় অবস্থানে অধিষ্ঠিতজনদের সংহত ও দায়িত্বশীল আচরণ অপরিহার্য। তাঁদের রাজনীতি যে বাস্তবেই জনগণের স্বার্থে, জনগণের অধিকার খর্ব করার জন্য নয়, জনগণকে জিম্মি করে শক্তি পরীক্ষার জন্য নয়, তার প্রমাণ দেবার সময় এখনই।”
. জামান বলেন, “দেশের চলমান রাজনৈতিক সংকট দেশের সুশাসন প্রতিষ্ঠা ও গণতান্ত্রিক অগ্রযাত্রাকে শুধু পেছনে ঠেলে দিচ্ছে তাই নয়, বরং সুস্থ রাজনৈতিক সংস্কৃতির চর্চার অভাবে গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানগুলো আজ অকার্যকর হয়ে যাচ্ছে। সাধারণ মানুষ, বিশেষ করে তরুণ প্রজন্ম ও স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীদের কাছে রাজনীতিকে এক বিভৎস রূপে তুলে ধরে রাজনীতি বিমূখতার বীজ বপন করা হচ্ছে।”
রাজনৈতিক অঙ্গনে এ ধরনের কর্মকান্ড উগ্র, সহিংস এবং অগণতান্ত্রিক শক্তিকে আরো বিকাশের সুযোগ করে দেবে উল্লেখ করে তিনি দেশের স্বার্থে প্রধান রাজনৈতিক দলগুলোকে বিশেষ করে বড় দুটি দলকে  সমঝোতা ও শান্তিপূর্ণ উপায়ে রাজনৈতিক কর্মসূচি পালনের আহ্বান জানান। 
Media Contact