• header_en
  • header_bn

 

Corruption increases poverty and injustice. Let's fight it together...now

 

TIB protests health advisor's remark, Bangla

সংবাদবিজ্ঞপ্তি

সাংবাদিকদের স্বাস্থ্য বিষয়ক তথ্য প্রদান ও কমিউনিটি ক্লিনিকে নিয়োগ বিষয়ে

স্বাস্থ্য বিষয়ক উপদেষ্টার মন-ব্যে টিআইবি গভীরভাবে উদ্বিগ্ন

ঢাকা, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১০: স্বাস্থ্য বিষয়ক তথ্য গণমাধ্যমের কাছে প্রকাশে সরকার বাধ্য নয় এবং কমিউনিটি ক্লিনিকে দলীয় প্রার্থীদের নিয়োগ দিতে হবে, এই মর্মে গণমাধ্যমে ২১ সেপ্টেম্বর প্রধানমন্ত্রীর স্বাস্থ্য বিষয়ক উপদেষ্টা ডা. সৈয়দ মোদাচ্ছের আলীর মন্তব্যে  ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে।

এক বিবৃতিতে টিআইবি’র নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, স্বাস্থ্য বিষয়ক তথ্য গণমাধ্যমের কাছে প্রকাশে সরকার বাধ্য নয় মর্মে স্বাস্থ্য উপদেষ্টার এই মন্তব্য মহাজোট সরকারের নির্বাচনী অঙ্গীকার এবং তথ্য অধিকার আইন ২০০৯ এর উদ্দেশ্য ও লক্ষ্যের সাথে পরিপন্থী সরকার গঠনের পর সংসদের প্রথম অধিবেশনেই তথ্য অধিকার আইন ২০০৯ প্রণয়নের মাধ্যমে সুশাসন প্রতিষ্ঠা ও দুর্নীতি প্রতিরোধক পরিবেশ তৈরীর যে সম্ভাবনার সৃষ্টি হয়েছে, স্বাস্থ্য উপদেষ্টার এই বক্তব্যে তা ধুলিস্যাৎ হবে। আমরা বিশ্বাস করতে চাই স্বাস্থ্য উপদেষ্টার এই বক্তব্য সরকারের সর্বোচ্চ পর্যায়েও অগ্রহনযোগ্য বলে বিবেচিত হবে। 

প্রজাতন্ত্রের চাকুরীলাভে প্রতিযোগিতামূলক পরিবেশ এবং সুযোগের সমতা সৃষ্টির ব্যাপারে বাধ্যবাধকতা থাকা সত্ত্বেও স্থানীয় কমিউনিটি ক্লিনিকে শুধুমাত্র সরকার দলীয় কর্মীদের নিয়োগ, অযোগ্য হলেও দলীয় কর্মীদের চাকুরী প্রদানের সুযোগ প্রদান এবং সর্বোপরি কমিউনিটি স্বাস্থ্য কর্মী নিয়োগে রাজনৈতিক আনুগত্য বিবেচনায় নেয়া না হলে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তার বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের ব্যাপারে স্বাস্থ্য উপদেষ্টার প্রচ্ছন্ন হুমকি সত্যিই দুর্ভাগ্যজনক। সরকারের দায়িত্বশীল অবস্থান থেকে এ ধরনের উক্তি গণতন্ত্রের প্রাতিষ্ঠানিকীকরণ, সুশাসন প্রতিষ্ঠা ও দুর্নীতি প্রতিরোধে সরকারের যে নির্বাচনী অঙ্গীকার তার বাস্তবায়নে চরম প্রতিবন্ধক হয়ে দাঁড়াবে বলে মনে করে টিআইবি।

উল্লেখ্য, রাজনৈতিক প্রভাব বিস্তারের মাধ্যমে স্থানীয় প্রশাসনের কাছ থেকে বলপূর্বক বিভিন্ন ধরনের সুবিধা আদায়ের সামপ্রতিক ঘটনাগুলো জনমনে নানা প্রশ্ন ও উদ্বেগ সৃষ্টি করেছে। বিশেষত পাবনায় দলীয় বিবেচনায় নিয়োগ সংক্রান্ত পরীক্ষা গ্রহণে বাধা প্রদান এবং পঞ্চগড়ে নিয়োগ পরীক্ষা সম্পন্ন হওয়ার পর দলীয় প্রার্থীর চাকুরী লাভে ব্যর্থতার প্রেক্ষিতে সরকারী কার্যালয়ে হামলা ও ভাংচুরের ঘটনা সুশাসন প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে বড় ধরনের হুমকি বলে টিআইবি মনে করে।

এ প্রেক্ষিতে উপদেষ্টার বক্তব্য সুনির্দিষ্টভাবে প্রত্যাহার করা না হলে স্বাস্থ্যসেবার মত গুরুত্বপূর্ণ খাতে পেশাগত উৎকর্ষতার প্রতিবন্ধকতাসহ প্রশাসন. প্রকল্প বাস্তবায়ন ও সার্বিকভাবে উন্নয়ন কর্মকান্ডে অরাজকতার সৃষ্টি করতে পারে। এতে দুর্নীতির প্রসার ঘটবে ও সাধারন মানুষের অধিকার হরণ হবে। সরকার, প্রশাসন ও সেবামূলক খাতের উপর জনগণের আস্থা প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে সরকারের সর্বোচ্চ পর্যায় থেকে এরূপ বক্তব্যের বিপরীতে সুস্পষ্ট অবস্থান ব্যাখ্যাপূর্বক কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহন করার আহ্বান জানায় টিআইবি।

গণমাধ্যমযোগাযোগ

রিজওয়ান-উল-আলম

পরিচালক

আউটরিচঅ্যান্ডকমিউনিকেশন

ফোন: ০১৭১৩০৬৫০১২

-মেইল: rezwan@ti-bangladesh