• header_en
  • header_bn

 

Corruption increases poverty and injustice. Let's fight it together...now

 

TIB Observed International Youth Day 2010

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

স্বাধীনতার স্বপ্নপূরণে চাই কার্যকর দুর্নীতি প্রতিরোধ

আন্তর্জাতিক যুব দিবস ২০১০ উপলক্ষে টিআইবি আয়োজিত র‍্যালি ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে তারুণ্যের আহ্বান

ঢাকা, ১০ আগস্ট ২০১০: ১২ আগস্ট জাতিসংঘ ঘোষিত আন্তর্জাতিক যুব দিবস। ‘স্বাধীনতার স্বপ্নপূরণে চাই কার্যকর দুর্নীতি প্রতিরোধ’ এই স্লোগানকে প্রতিপাদ্য করে টিআইবি আজ (১০ আগস্ট ২০১০) দিবসটি পালন করল। প্রতিবছরের মত এবারও দিবসটি উদযাপন উপলক্ষে টিআইবির প্রেরণায় তরুণ  স্বেচ্ছাসেবকদের নিয়ে গঠিত ঢাকা ইয়েস (ইয়ুথ এনগেইজমেন্ট অ্যান্ড সাপোর্ট) গ্রুপ ও সর্ব স্তরের তরুণদের অংশগ্রহণে র‍্যালি, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও সমাজের বরেণ্য ব্যক্তিত্ব ও সামাজিক আন্দোলনের কর্মীদের অংশগ্রহণে সংহতি সমাবেশের আয়োজন করা হয়।

আজ সকাল ১১ টায় এক বর্ণাঢ্য র‍্যালির মাধ্যমে সারাদিনের কার্যক্রম শুরু হয়। প্রধান অতিথি হিসেবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক আ. আ. ম. স. আরেফিন সিদ্দিক র‍্যালিটি উদ্বোধন করেন এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. কে.এম. সাইফুল ইসলাম খান। আরো উপস্থিত ছিলেন টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান। টিআইবি কর্তৃক ঢাকার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে গঠিত ইয়েস গ্রুপের সদস্য, সাধারণ ছাত্র-ছাত্রী, শিক্ষক, টিআইবি কর্মী, বিভিন্ন সমমনা সংগঠনের প্রতিনিধিসহ সর্ব স্তরের মানুষের অংশগ্রহণে র‍্যালিটি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্রের মূল গেইটের সামনে থেকে শুরু হয়ে কলা

ভবন চত্বরের অপরাজেয় বাংলার সামনে গিয়ে শেষ হয়।

বিকেল ৪.১৫টায় ধানমন্ডিস্থ রবীন্দ্র সরোবর মুক্তমঞ্চে দুর্নীতিবিরোধী এক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও সংহতি সমাবেশের আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন টিআইবি’র নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান। অনুষ্ঠানে কবিতা, নৃত্য ও সংগীতসহ বিভিন্ন ধরনের পরিবেশনায় অংশগ্রহণ করে টিআইবির উদ্যোগে ঢাকার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে গঠিত ১৩ টি ইয়েস গ্রুপের তরুণ সদস্যগণ। প্রদর্শন করা হয় টিআইবি কর্তৃক প্রথমবারের মত ঢাকায় গঠিত ঢাকা ইয়েস নাট্যদলের দুর্নীতিবিরোধী প্রযোজনা ‘সরিষা থেরাপি। মূলত শিক্ষা, স্বাস্থ্য এবং তথ্য অধিকার নিয়ে নাটকটির কাহিনী আবর্তিত হয়েছে, যেখানে সমাজের ঘটমান বিভিন্ন অসঙ্গতির চিত্র সুনিপূণভাবে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে।

অনুষ্ঠানের এক পর্যায়ে তরুণদের সাথে সংহতি প্রকাশ করে মঞ্চে আসেন তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা এবং টিআইবি ট্রাস্টি বোর্ডের কোষাধ্যক্ষ অ্যাড. সুলতানা কামাল ও মুক্তিযোদ্ধা আক্কু চৌধুরী। অ্যাড. সুলতানা কামাল তার বক্তব্যে বলেন, আমাদের স্বাধীনতার উদ্দেশ্য ছিল বিভিন্ন অসমতা এবং দারিদ্রতা থেকে মুক্তি, আমাদের ভালভাবে বেঁচে থাকার জন্য যে অধিকার তা সুনিশ্চিত করা। আমাদের স্বাধীনতার সেই উদ্দেশ্য গুলিকে আমাদের অর্জন করতে হবে। আমরা সবাই যদি একসাথে দাঁড়াই তাহলে আমরা আমাদের সেই অধিকার গুলো ফিরে পাবই। মুক্তিযোদ্ধা আক্কু চৌধুরী বলেন, তরুণদের দায়িত্ব হচ্ছে দুর্নীতির বিরুদ্ধে যে মুক্তিযুদ্ধ শুরু হয়েছে সেই যুদ্ধে জয়ী হওয়া। তরুণরা অবশ ্যই সেই যুদ্ধে জয়ী হবে। এরপর একে একে মঞ্চে আসেন শিল্পী ফাহমিদা নবী এবং বারী সিদ্দিকী। তাঁরা তাদের সংগীতের মূর্ছনায় ভরিয়ে তোলেন হাজারো দর্শকের মন। অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণকারী তরুণ ইয়েস সদস্যগণ তাদের নানা পরিবেশনার মাধ্যমে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বুকে ধারণ করে দুর্নীতিমুক্ত বাংলাদেশ গঠনের প্রত্যয় ঘোষনা করে। অনুষ্ঠানে রেডিও পার্টনার হিসেবে ছিল এবিসি রেডিও।

উল্লেখ্য, টিআইবি জাতীয় ও স্থানীয় পর্যায়ের সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানসমূহের কার্যক্রমে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করবার জন্য বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করে থাকে। এক্ষেত্রে টিআইবির প্রেরণায় গঠিত ইয়েস সদস্যবৃন্দ সক্রিয় ভূমিকা পালন করে যাচ্ছে।

গণমাধ্যম যোগাযোগ:

সাজ্জাদ হুসেইন

সিনিয়র প্রোগ্রাম ম্যানেজার - আউটরিচ অ্যান্ড কমিউনিকেশন

মোবাইল: ০১৭১৩০৯২২৯৫,

ইমেইল: sajjad@ti-bangladesh.org