• header_en
  • header_bn

অধ্যাপক আবদুল্লাহ আবু সায়ীদের উদ্দেশ্যে অসংসদীয় বক্তব্য এক্সপাঞ্জ করার সিদ্ধান্তে টিআইবি’র অভিনন্দন

অধ্যাপক আবদুল্লাহ আবু সায়ীদের উদ্দেশ্যে অসংসদীয় বক্তব্য এক্সপাঞ্জ করার সিদ্ধান্তে টিআইবির অভিনন্দন

ঢাকা, ১১ জুন ২০১২: বিশ্ব সাহিত্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা এবং ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) এর ট্রাস্টি বোর্ডের সম্মানিত সদস্য অধ্যাপক আবদুল্লাহ আবু সায়ীদ সম্পর্কে গত ৩ জুন জাতীয় সংসদে প্রদত্ত  কয়েকজন সংসদ সদস্যের অসংসদীয় বক্তব্য এক্সপাঞ্জ করার ব্যপারে মাননীয় স্পীকারের গতকালের (রোববার) সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়ে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছে টিআইবি।

এক বিবৃতিতে টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, ‘‘মাননীয় স্পীকার অ্যাডভোকেট আব্দুল হামিদ অধ্যাপক সায়ীদ সম্পর্কিত অসংসদীয় বক্তব্যের ব্যাপারে গত রোববার সংসদে দুঃখ প্রকাশ করে এবং উক্ত বক্তব্য এক্সপাঞ্জ করার সিদ্ধান্ত  গ্রহণ করে বাংলাদেশের সংসদীয় চর্চায় এক অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন। আমরা এজন্য মাননীয় স্পীকারকে আন্তরিক ধন্যবাদ ও অভিনন্দন জানাই। আমরা আশা করি, তাঁর এই সিদ্ধান্ত অবিলম্বে যথানিয়মে কার্যকর হবে এবং বাস্তবে পুরো ১৮ মিনিটের সম্পূর্ণ আলোচনাটিই বাদ(এক্সপাঞ্জ)  দেয়া হবে। মাননীয় স্পীকারের এই সুবিবেচিত সিদ্ধান্তের ফলে অধ্যাপক সায়ীদের কথিত বক্তব্যকে ঘিরে যে অনাকাক্সিক্ষত বিতর্কের সূত্রপাত হয়েছিল, তার সম্মানজনক পরিসমাপ্তি ঘটবে বলে আমরা বিশ্বাস করি।

তিনি আরো বলেন, ‘‘মাননীয় স্পীকারের এই ভূমিকায় মহান জাতীয় সংসদে গণতান্ত্রিক চর্চার প্রতি শ্রদ্ধাবোধ, পরমতসহিষ্ণুতা, সম্মানিত সংসদ সদস্যদের মার্জিত, সংবেদনশীল, দায়িত্বপূর্ণ ও তথ্যনির্ভর বক্তব্য উপস্থাপনের অপরিহার্যতা ও অঙ্গীকারের প্রত্যয় পূর্ণব্যক্ত হয়েছে। এ প্রসঙ্গে টিআইবি সংসদে উত্থাপিত সংসদ সদস্যদের আচরণ বিধির উপর প্রস্তাবিত বেসরকারি বিলটি যথাশীঘ্র সম্ভব বিবেচনাপূর্বক আইনে রূপান্তরিত করার দাবি জানায়।

একইসাথে, টিআইবি স্পীকারের সাথে একাত্ম হয়ে কয়েকটি সংবাদপত্র কর্তৃক ভিত্তিহীন সংবাদ প্রকাশে উদ্বিগ্ন হয়ে সংশ্লিষ্ট সকলের নিকট দাবি জানাচ্ছে যেন তারা আরো সচেতনতা, সততা ও বস্তুনিষ্ঠতার সাথে পেশাগত দায়িত্ব পালনে ব্রতী হন। সংবাদ মাধ্যমের পেশাগত ও নৈতিকমান উন্নয়নে গণমাধ্যমের অভ্যন্তর থেকেই উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে। বিশেষ করে খাত-ওয়ারী ও প্রতিষ্ঠানভিত্তিক নৈতিক আচরণবিধি প্রণয়ন ও কার্যকর প্রয়োগের মাধ্যমে সংবাদ মাধ্যমের ও মত প্রকাশের স্বাধীনতার বাস্তবিক প্রাতিষ্ঠানিকীকরণ ও সুফল অর্জন সম্ভব বলে মনে করে টিআইবি।

উল্লেখ্য, গত ৫ জুন সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এবং ৭ জুন টিআইবির ট্রাস্টি বোর্ডের পক্ষ থেকে মাননীয় স্পীকারকে প্রাতিষ্ঠানিকভাবে উল্লিখিত বক্তব্য এক্সপাঞ্জ করার অনুরোধ জানানো হয়। এর আগে ৩ জুন অধ্যাপক আবু সায়ীদের বক্তব্যের অনুলিপি ও সিডি স্পীকার বরাবরে প্রেরণ করা হয়।

Media Contact