• header_en
  • header_bn

 

Corruption increases poverty and injustice. Let's fight it together...now

 

11 organizations demand lawful action for Anti-DAP activities by some private housing company (Bangla)

ড্যাপ-বিরোধী কর্মকান্ডে জড়িত বেসরকারি আবাসন কোম্পানীর বিরুদ্ধে

আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণে ১১ সংগঠনের দাবি

১৩ সেপ্টেম্বর ২০১২: কতিপয় বেসরকারি আবাসন কোম্পানীর ড্যাপ বিরোধী কার্যক্রম এবং এ বিষয়ে রাজউকের কার্যক্রমের স্বচ্ছতা দাবি করে ১১টি সংগঠন গৃহায়ন ও গণপূর্ত  মন্ত্রণালয়ের সচিব এর কাছে আজ এক পত্র প্রেরণ করেছে।

যে সকল সংগঠন এই পত্র প্রেরণ করেছে সেগুলি হলো: আইন ও সালিশ কেন্দ্র (আসক), এসোসিয়েশন ফর ল্যান্ড রিফোর্ম অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট (এএলআরডি), বাংলাদেশ পরিবেশ আইনবিদ সমিতি (বেলা), বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা), বাংলাদেশ লিগ্যাল এইড এন্ড সার্ভিসেস ট্রাস্ট (ব্লাস্ট), বাংলাদেশ ইন্সটিটিউট অব প্ল্যানার্স (বিআইপি), পরিবেশ বাঁচাও আন্দোলন (পবা), সেন্টার ফর আরবান স্টাডিজ (সিইউএস),  ইন্সটিটিউট অব আর্কিটেক্টস অব বাংলাদেশ (আইএবি), নিজেরা করি এবং ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)।

গত ৩১ জুলাই ২০১২ তারিখে “The Daily Starএ প্রকাশিত “Illegal Housing Projects, Government making those legalসংবাদের প্রতিবেদন অনুযায়ী রাজউক বেসরকারি আবাসিক কোম্পানীগুলোর কিছু অবৈধ এবং অননুমোদিত প্রকল্পের অনুমোদন দেয়ার প্রক্রিয়া শুরু করেছে এবং ইতোমধ্যে কিছুসংখ্যক প্রকল্পের অবৈধভাবে অনুমোদনও প্রদান করেছে।

গণপূর্ত সচিবের কাছে প্রেরিত চিঠিতে বলা হয় রাজউক যে সকল প্রকল্পের অনুমোদন প্রক্রিয়া শুরু করেছে তার মধ্যে বেশিরভাগই মাস্টার প্ল্যানে চিহ্নিত বন্যা প্রবাহ এলাকা, ফ্লাড রিটেনশন পন্ড, এগ্রিকালচারাল হাই ভ্যালু ল্যান্ড এলাকায় বাস্তবায়িত হচ্ছে। কোন কোন ক্ষেত্রে যে পরিমাণ ভূমি ভরাটের জন্য তারা অনুমোদন পেয়েছে তার চার পাঁচ গুন জমি তারা ভরাট করেছে এবং তা প্রাথমিক অনুমোদনের আড়ালে নিয়মিতকরণের চেষ্টা চালাচ্ছে।

চিঠিতে আরো বলা হয়, জলাশয় আইন ও ঢাকা মেট্রোপলিটান ডেভেলাপমেন্ট প্ল্যান(১৯৯৫-২০১৫) এর শর্ত ভঙ্গ করার কারনে বেসরকারি আবাসিক প্রকল্পগুলি ভূমি উন্নয়ন বিধিমালা, ২০০৪ অনুযায়ী অনুমোদন পেতে পারেনা। অনেক ক্ষেত্রেই উদ্যোক্তারা তাদের প্রস্তাবিত ভূমির বাইরেও বিভিন্ন মৌজায় বিস্তৃত এলাকার ভূমি ভরাট করছে বলে অভিযোগ রয়েছে। বেসরকারী আবাসিক প্রকল্পের ভূমি উন্নয়ন বিধিমালা, ২০০৪-এ সুস্পষ্ট নিষেধাজ্ঞা লংঘন করে উদ্যোক্তাগণ তাদের অননুমোদিত প্রকল্পের প্লট বিক্রির বিজ্ঞাপন অব্যাহত রেখেছে এবং প্লট বিক্রি করছে বলে চিঠিতে উল্লেখ করা হয়।

জনস্বার্থকে সমুন্নত রাখতে বেসরকারি আবাসন কোম্পানীগুলোর অননুমোদিত প্রকল্পের বিরুদ্ধে আইন ও বিধি অনুযায়ী শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের আবেদন জানিয়েছে ১১টি সংগঠন। এছাড়া এসব প্রকল্পের অনুমোদন প্রদান প্রক্রিয়ার স্বচ্ছতা এবং প্রযোজ্য ক্ষেত্রে অনুমোদনের শর্তাবলীর প্রতিপালনে নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধান নিশ্চিত করতে বেসরকারি আবাসিক প্রকল্পের ভূমি উন্নয়ন বিধিমালা, ২০০৪-এর ধারা ১৮ অনুযায়ী সুশীলসমাজের সর্বজন শ্রদ্ধেয় ব্যক্তিদের অন্তর্ভুক্তি এবং বিরোধপূর্ণ সকল প্রকল্প এবং এগুলোর অনুমোদন সংক্রান্ত সকল তথ্য অবিলম্বে জনসমক্ষে প্রকাশের দাবি জানিয়েছে ১১টি সংগঠন।

গণমাধ্যম যোগাযোগ

১১টি সংগঠনের পক্ষে

রিজওয়ান-উল-আলম

পরিচালক, আউটরিচ অ্যান্ড কমিউনিকেশন

ফোন: ০১৭১৩ ০৬৫০১২

ই মেইল: This email address is being protected from spambots. You need JavaScript enabled to view it.