• header_en
  • header_bn

 

Corruption increases poverty and injustice. Let's fight it together...now

 

TIB's Anti-Corruption Cartoon Exhibition begins (Bangla)

টিআইবির উদ্যোগে দুর্নীতিবিরোধী কার্টুন প্রদর্শনীর আয়োজন

কার্টুনের মাধ্যমে দুর্নীতির বিরুদ্ধে সোচ্চার হওয়ার আহ্বান

ঢাকা, ৯ ডিসেম্বর ২০১২: আন্তর্জাতিক দুর্নীতিবিরোধী দিবস উপলক্ষে আজ ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) আয়োজিত ৭ম দুর্নীতিবিরোধী কার্টুন প্রদর্শনীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তারা কার্টুনের মাধ্যমে দুর্নীতির বিরুদ্ধে সোচ্চার হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।

বিকেল ৪টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের জয়নুল গ্যালারিতে অনুষ্ঠিত দুর্নীতিবিরোধী কার্টুন প্রদর্শনীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড.আ.আ.ম.স.আরেফিন সিদ্দিক এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট কার্টুনিস্ট অধ্যাপক রফিকুন নবী এবং শিল্পী হাশেম খান। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান। আরো উপস্থিত ছিলেন কার্টুনিস্ট আহসান হাবীব।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে অধ্যাপক ড. আ.আ.ম.স. আরেফিন সিদ্দিক বলেন, ‘‘মুক্তিযুদ্ধে যাঁরা জীবন দিয়েছেন তাঁদের স্বপ্ন ছিল একটি গণতান্ত্রিক, সমৃদ্ধ ও অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়ার। মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে আজকের তরুণ সমাজ সেই বাংলাদেশ গঠনে বলিষ্ঠ ভূমিকা রাখতে পারবে যেখানে কোন দুর্নীতি থাকবেনা। আমাদের তরুণ সমাজ কখনোই দুর্নীতিকে প্রশ্রয় দেবে না।

শিল্পী হাশেম খান তাঁর বক্তব্যে বলেন, ‘‘তরুণ শিল্পীরা সমাজের অসংলগ্ন বিষয় সত্যনিষ্ঠভাবে কার্টুনের মাধ্যমে তুলে ধরে।বিশিষ্ট কার্টুনিস্ট রফিকুন নবী তাঁর বক্তব্যে বলেন, ‘‘দুর্নীতি অনেকদিন থেকেই আমাদের পিছু নিয়েছে, এ থেকে আমাদের পরিত্রাণ নেই, কার্টুন দুর্নীতির বিরুদ্ধে কাজ করার একটি শক্তিশালী মাধ্যম। এই মাধ্যমে আমাদের তরুণ কার্টুনিস্টরা দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়াইয়ে সক্রিয় ভূমিকা পালন করবে।

অনুষ্ঠানে দুর্নীতিবিরোধী কার্টুন প্রতিযোগিতা ২০১২ এর বিজয়ী ও বিশেষ মনোনয়নপ্রাপ্ত কার্টুনিস্টদের মাঝে পুরস্কার ও সনদ বিতরণ করা হয়। এবারের প্রতিযোগিতায় ক বিভাগে (১৩-১৮ বছর) ১ম, ২য় ও ৩য় স্থান অধিকার করেছে যথাক্রমে মো. হাসান মাহ্মুদ,   মো. নাইমুর রহমান এবং ফাইয়াজ মো. ইশরাক ইউসুফ।  খ বিভাগে (১৯-৩৫ বছর) ১ম, ২য় ও ৩য় স্থান অধিকার করেছে যথাক্রমে আরাফাত করিম, মানবেন্দ্র গোলদার এবং মেহেদি হক। এছাড়া ২টি বিভাগ থেকে মোট ৫০টি কার্টুনকে বিশেষ মনোনয়ন দেয়া হয়। উল্লেখ্য এ প্রতিযোগিতায় দুইটি বিভাগের বিজয়ী ও বিশেষভাবে মনোনীত ৫৬টি কার্টুন নিয়ে এ প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়েছে। আজ থেকে ১৬ ডিসেম্বর ২০১২ পর্যন্ত প্রতিদিন দুপুর ১২টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত সর্বসাধারণের জন্য এ প্রদর্শনী উন্মুক্ত থাকবে। সারাবিশ্বের দর্শক টিআইবির ওয়েবসাইট (ti-bangladesh.org) ও ফেইসবুক (facebook.com/TIBangladesh) মাধ্যমে প্রদর্শনীটি উপভোগ করতে পারবেন।

এর আগে বিকেল ৩.৩০টায় আয়োজিত হয় দুর্নীতিবিরোধী এক মানববন্ধন। দুর্জয় তারুণ্যে, বিজয়ের চেতনায় দুর্নীতি রুখবোই’’ এই শ্লোগান নিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের সম্মুখ সড়কে মানববন্ধনে ঢাকা ইয়েস এর সদস্য, বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, সুশীল সমাজের প্রতিনিধি, সমমনা সংগঠনের নেতৃবৃন্দসহ নানা শ্রেণী পেশার মানুষ অংশগ্রহণ করেন।

মানববন্ধনে ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, ‘‘জাতির জনক ৭১ এর মুক্তিযুদ্ধের সময় ঘরে ঘরে দূর্গ গড়ে তোলার জন্য যেমন আহ্বান জানিয়েছিলেন তেমনি স্বাধীনতাত্তোরকালেও দুর্নীতির বিরুদ্ধে ঘরে ঘরে দূর্গ গড়ে তোলার আহ্বান জানিয়েছিলেন। বঙ্গবন্ধু বলেছিলেন দুর্নীতিবিরোধী লড়াইয়ের কাজে সহযোগিতা করবে বাংলার তরুণ সমাজ, ছাত্র, কৃষক, শ্রমিকসহ বৃদ্ধিজীবী।ড. জামান বলেন, ‘‘আমরা জাতির জনকের সেই আহ্বানের সাথে একাত্ম হয়ে দুর্নীতিমুক্ত ও সুশাসিত সুন্দর একটি দেশ গড়ার উদ্যোগ হিসেবে সাধারণ জনগণের মধ্যে দুর্নীতিবিরোধী সচেতনতা সৃষ্টি ও সরকারি সেবাদানকারি প্রতিষ্ঠানের দায়িত্বশীলতা বৃদ্ধিতে ৯ ডিসেম্বর আন্তর্জাতিক দুর্নীতিবিরোধী দিবসটিকে সরকারিভাবে উদ্যাপনের জন্য সরকারকে আহ্বান করছি।

Media Contact