• header_en
  • header_bn

 

Corruption increases poverty and injustice. Let's fight it together...now

 

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন প্রক্রিয়া পর্যালোচনা

সুশাসন ও শুদ্ধাচার গণতন্ত্রের অন্যতম পূর্বশর্ত, যার অন্যতম ভিত্তি হচ্ছে একটি সুষ্ঠু, অবাধ ও অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন। এ ধরনের নির্বাচনের জন্য প্রয়োজন সুষ্ঠু নির্বাচন প্রক্রিয়া অনুসরণ করা। নির্বাচন অনুষ্ঠানের দায়িত্ব সাংবিধানিকভাবে নির্বাচন কমিশনের ওপর ন্যস্ত থাকলেও অন্যান্য অংশীজনের ভূমিকাও এ প্রক্রিয়ায় গুরুত্বপূর্ণ। এসব অংশীজনের মধ্যে রয়েছে প্রশাসন ও আইন প্রয়োগকারী বাহিনীসহ সরকারের বিভিন্ন অঙ্গ, ক্ষমতাসীন দল/ জোট, বিরোধী রাজনৈতিক দল/ জোট, প্রার্থী, নাগরিক সমাজ, সংবাদ-মাধ্যম ও নির্বাচন পর্যবেক্ষক।
২০০৭ ও ২০০৯ সালে টিআইবি’র গবেষণায় দেখা যায় বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জয়লাভের জন্য রাজনৈতিক দল ও তাদের মনোনীত প্রার্থীদের আইন-বহির্ভূত উপায়ের আশ্রয় নেওয়া এবং নির্বাচনী আইন ও আচরণবিধি বিভিন্ন পর্যায়ে লঙ্ঘনের প্রবণতা রয়েছে। সম্প্রতি ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর সম্পন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন দলীয় সরকারের অধীনে অনুষ্ঠিত নির্বাচন তত্ত্বাবধায়ক সরকারব্যবস্থা বাতিল হওয়ার পর প্রথম নির্বাচন যেখানে সবগুলো রাজনৈতিক দল অংশগ্রহণ করেছে। 
সুশাসন প্রতিষ্ঠা ও দুর্নীতি প্রতিরোধে শুদ্ধাচার প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে জাতীয় সংসদের ভূমিকা অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ, যেহেতু জাতীয় সংসদের একটি প্রধান কাজ সরকারের জবাবদিহি নিশ্চিত করা। নির্বাচনের মাধ্যমে জাতীয় সংসদ গঠিত হয় বলে নির্বাচনী প্রক্রিয়া পর্যালোচনা করাও একইরকম গুরুত্বপূর্ণ। বাংলাদেশের নির্বাচন কমিশন ও নির্বাচন ব্যবস্থার ওপর টিআইবি’র পূর্ববর্তী গবেষণার ধারাবাহিকতায় একাদশ সংসদ নির্বাচনের প্রক্রিয়া পর্যালোচনা সংক্রান্ত গবেষণার প্রয়োজনীয়তা অনুভূত হওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে এই গবেষণার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।
বিস্তারিত জানতে নিচে ক্লিক করুন
প্রাথমিক প্রতিবেদন (বাংলা)
Preliminary Report 
মূল প্রতিবেদন  
উপস্থাপনা
FAQ