• header_en
  • header_bn

 

Corruption increases poverty and injustice. Let's fight it together...now

 

এসডিজি-১৬ ও সুশাসন: সরকার, গণমাধ্যম ও জনগণ

জনগনকে অবহিতকরণের লক্ষ্যে সংবাদ ও তথ্য প্রচারই গণমাধ্যমের প্রধানতম দায়িত্ব। সময়ের পরিক্রমায় গণমাধ্যম রাষ্ট্রের ‘চতুর্থ ¯তম্ভ’ হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে। জাতিসংঘের সর্বজনীন মানবাধিকার ঘোষণার অনুচ্ছেদ ১৯ অনুযায়ী মত প্রকাশ একটি মৌলিক অধিকার। বাংলাদেশের সংবিধানের অনুচ্ছেদ ৩৯-এ বাক-স্বাধীনতা এবং গণমাধ্যমের স্বাধীনতার স্বীকৃতি প্রদান করা হয়েছে ।

তথ্য অবহিতকরণ এবং জনমত গঠনে গণমাধ্যমের ভূমিকা অপরিসীম। বিভিন্ন গবেষণায়  রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা বজায় রাখা, কার্যকর আইন ও নীতি প্রণয়ন, আইন-শৃঙ্খলা প্রতিষ্ঠা ও আইনের শাসন নিশ্চিতকরণে, সরকারের জবাবদিহিতা প্রতিষ্ঠায়, দুর্নীতি প্রতিরোধে, তথ্যের অধিকার প্রতিষ্ঠায় সর্বোপরি জনগণ ও রাষ্ট্রের মধ্যে সেতুবন্ধন স্থাপনে গণমাধ্যমের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকার বিষয়টি প্রতিফলিত হয়েছে।

এই নিবন্ধে জাতিসংঘের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা বা Sustainable Development Goal (SDGs) এসডিজির ১৭টি অভীষ্টের মধ্যে সুশাসন সম্পর্কিত এসডিজি-১৬র বাস্তবায়নে সরকার, গণমাধ্যম ও জনগনের আন্তসম্পর্ক-কে বিশ্লেষণে প্রয়াস নেয়া হয়েছে। এই নিবন্ধের প্রধান উদ্দেশ্য হল, এসডিজি অভীষ্ট ১৬ এর সুশাসন সম্পর্কিত লক্ষ্যমাত্রাসমূহ অর্জনে গণমাধ্যমের ভূমিকা পর্যালোচনা। এই উদ্দেশ্যকে সামনে রেখে নিবন্ধে প্রথমে এসডিজি-১৬র সুশাসন সম্পর্কিত বিষয়গুলো তুলে ধরা হয়েছে। এরপর সুশাসনের সম্পর্ক বিশ্লেষণের পর সরকার, গণমাধ্যম ও জনগণের আন্তসম্পর্ক বিশ্লেষণের মাধ্যমে এসডিজি-১৬ এর লক্ষ্যমাত্রাসমূহ বাস্তবায়নের অনুকূলে কিভাবে জনমত গড়ে তোলা সম্ভব তা তুলে ধরা হয়েছে।

 সংলাপ এখানে