• header_en
  • header_bn

 

Corruption increases poverty and injustice. Let's fight it together...now

 

তৈরি পোশাক খাতে সুশাসন: অগ্রগতি ও চ্যালেঞ্জ (এপ্রিল ২০১৬-মার্চ ২০১৭)

টিআইবি’র (অক্টোবর ২০১৩) গবেষণায় তৈরি পোশাকখাতে দুর্ঘটনা ও কমপ্লায়েন্স ঘাটতির অন্যতম কারণ হিসেবে সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন অংশীজনের মধ্যে সমন্বয়হীনতা, দায়িত্বে অবহেলা, রাজনৈতিক প্রভাব, পারস্পরিক যোগ-সাজশে বিভিন্ন অনিয়ম ও দুর্নীতিকে চিহ্নিত করা হয় এবং সুশাসন প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে ২৫ দফা সুপারিশ পেশ করা হয়। পরবর্তীতে বিভিন্ন অংশীজন কর্তৃক গৃহীত বিভিন্ন উদ্যোগ ও বাস্তবায়নের অগ্রগতি পর্যবেক্ষণের জন্য টিআইবি ধারাবহিকভাবে তিনটি ফলো আপ গবেষণা পরিচালনা করে, যেখানে তৈরি পোশাক খাতে সুশাসনের চ্যালেঞ্জ হিসেবে ৬৩টি বিষয়ে ১০২টি উদ্যোগ পর্যালোচনা করা হয়।

 তৃতীয় ফলোআপ (২০১৬) গবেষণায় প্রাপ্ত ফলাফলে দেখা যায়, রানা প্লাজা দুর্ঘটনার পরবর্তী তিনবছরে সরকার ও বিভিন্ন অংশীজন ধারাবাহিকভাবে এ সকল উদ্যোগের ৪২টি উদ্যোগ বাস্তবায়ন স¤পন্ন করেছে, ৩৬টি উদ্যোগ বাস্তবায়ন চলমান রয়েছে এবং ২৪টি উদ্যোগ বাস্তবায়ন ধীর বা স্থবির অবস্থায় রয়েছে। বাস্তবায়ন সম্পন্ন উদ্যোগসমূহের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো-ন্যূনতম মজুরি বোর্ড কর্তৃক মজুরি বৃদ্ধি, তৈরি পোশাক খাতের জন্য আলাদা কল্যাণ তহবিল গঠন, শ্রম বিধিমালা ২০১৫ প্রণয়ন, রাজউকের কার্যক্রম পরিচালনায় ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ ও রাজউক কার্যক্রম বিকেন্দ্রীকরণ, কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন পরিদপ্তর এর সক্ষমতা বৃদ্ধিতে পরিদপ্তর হতে অধিদপ্তরে রুপান্তর এবং প্রয়োজনীয় জনবল নিয়োগ, পরিদর্শক পদে ন্যূনতম যোগ্যতা বৃদ্ধি, কলকারখানা প্রতিষ্ঠান সংক্রান্ত অভিযোগ প্রদানে হটলাইন স্থাপন, কারখানা নিবন্ধনে অনলাইন ব্যবস্থাপনার প্রচলন, ফায়ার সার্ভিসের সক্ষমতা বৃদ্ধিতে প্রয়োজনীয় ইন্সপেক্টর নিয়োগ, মালিক কর্তৃক জরুরী ফোন নম্বরসহ পরিচয়পত্র প্রদান, অতিরিক্ত কর্মঘন্টার বেতন মাসিক বেতনের সাথে দেওয়ার প্রচলন প্রভৃতি।

 অপরদিকে, যে সকল উদ্যোগ বাস্তবায়ন হয়নি তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো- সাবকন্ট্রাক্ট ফ্যাক্টরি পরিচালনার জন্য নীতিমালা তৈরি না করা, কারখানায় শ্রমিক দুর্ঘটনার জন্য মালিক কর্তৃক ক্ষতিপূরণ প্রদানের পরিমাণ বৃদ্ধি না করা, রানাপ্লাজা দূর্ঘটনায় দোষীদের বিরুদ্ধে বিচারকার্য সম্পন্ন না করা, অংশীদারিত্ব মূলক ভবন ও অনিরাপদ ভবন হতে স্থানান্তরে পোশাক শিল্পের জন্য আলাদা পোশাক পল্লী স্থাপন না করা, ট্রেড ইউনিয়ন নিবন্ধন প্রক্রিয়া সহজতর না করা, বিজিএমইএর ইউডি প্রদানের এখতিয়ার বন্ধ না করা, শিল্পমন্ত্রণালয় কর্তৃক বিরোধ নিষ্পত্তিতে আলাদা সেল গঠন না করা, পোশাক কারখানা অধ্যুষিত এলাকায় পরিকল্পিত অগ্নি নির্বাপক স্টেশন তৈরি না করা, শিল্প ও বাণিজ্যিক ভবনের জন্য ‘বিশেষ উন্নয়ন প্রকল্প ছাড়পত্র’ এবং ‘ব্যবহার সনদ’ গ্রহণ বাধ্যতামূলক না করা, অগ্নি নির্বাপক ও প্রতিরোধ আইন-২০০৩ এর বিধিমালা সংশোধন না করা প্রভৃতি। বর্তমান কার্যপত্রে টিআইবি’র তৃতীয় ফলোআপ গবেষণা(এপ্রিল, ২০১৬) পরবর্তী গত একবছরে (মে, ২০১৬- এপ্রিল, ২০১৭) তৈরি পোশাকখাতে বিভিন্ন অংশীজন কর্তৃক গৃহীত উল্লেখযোগ্য পদক্ষেপসমূহ এবং বিদ্যমান চ্যালেঞ্জসমূহের একটি সংক্ষিপ্ত পর্যালোচনা করা হয়েছে।

 প্রতিবেদন এখানে