• header_en
  • header_bn

 

Corruption increases poverty and injustice. Let's fight it together...now

 
  • Seminar Paper/Concept Paper

    • আন্তর্জাতিক নারী দিবস ২০২০: টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট, সুশাসন, সমতা ও নারী

      নারী-পুরুষের সমতা ও নারী অধিকার প্রতিষ্ঠায় জনসচেতনতা বৃদ্ধি এবং রাষ্ট্রীয় ও আন্তর্জাতিক অঙ্গীকার বাস্তবায়নে অনুঘটক হিসেবে প্রতিবছর ৮ মার্চ জাতিসংঘ ঘোষিত আন্তর্জাতিক নারী দিবস পালিত হয়। এ বছর আন্তর্জাতিক নারী দিবসে জাতিসংঘের প্রতিপাদ্য- I am Generation Equality: Realizing Women’s Rights  (আমি সমতার প্রজন্ম: চাই নারীর অধিকার বাস্তবায়ন)।  আর বাংলাদেশ সরকারের মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের এবছরের প্রতিপাদ্য প্রজন্ম হোক সমতার, সকল নারীর অধিকার।   নারী অধিকার আন্দোলন ও দুর্নীতিবিরোধী আন্দোলন এক সূত্রে গাঁথা- এই চেতনায় ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)-ও অত্যন্ত গুরুত্বের সাথে আন্তর্জাতিক নারী দিবস পালন করে। টিআইবি মনে করে, নারীদের অর্ন্তভুক্ত না করে টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট অর্জন ও সুশাসন নিশ্চিত করা সম্ভব নয়। আন্তর্জাতিক নারী দিবসে টিআইবির এবারের প্রতিপাদ্য ‘টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট, সুশাসন, সমতা ও নারী’। পুরো ধারণাপত্রের জন্য এখানে ক্লিক করুন ।  

    • আন্তর্জাতিক দুর্নীতিবিরোধী দিবস ২০১৯; অন্তর্ভুক্তিমূলক টেকসই উন্নয়ন: দুর্নীতির বিরুদ্ধে একসাথে

      দুর্নীতি একটি বৈশ্বিক সমস্যা; পৃথিবীর কোনো দেশই পুরোপুরি দুর্নীতিমুক্ত নয়। আর তাই জাতিসংঘের উদ্যোগে ২০০৩ সালের ৩১ অক্টোবর ‘আন্তর্জাতিক দুর্নীতিবিরোধী সনদ’ United Nations Convention Against Corruption (UNCAC) অনুমোদিত হয়। একই বছর ৯ থেকে ১১ ডিসেম্বর মেক্সিকোর মেরিডায় উচ্চ রাজনৈতিক পর্যায়ের স্বাক্ষরের উদ্দেশ্যে অনুষ্ঠিত সম্মেলনে সনদটি উম্মুক্ত করা হয়। স্বাক্ষর প্রদানের গুরুত্বকে স্মরণীয় রাখতে প্রতিবছর ৯ ডিসেম্বর জাতিসংঘ ঘোষিত আন্তর্জাতিক দুর্নীতিবিরোধী দিবস হিসেবে পালন করা হয়। ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) ২০০৪ সাল থেকে আন্তর্জাতিক দুর্নীতিবিরোধী দিবস উদ্যাপন করছে এবং ২০১৩ সাল থেকে দিবসটি সরকারিভাবে পালন ও স্বীকৃতির দাবি জানিয়ে আসছিলো। যার ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশ ২০১৭ সাল থেকে সরকারিভাবে আন্তর্জাতিক দুর্নীতিবিরোধী দিবস উদ্যাপন করছে। দুর্নীতি প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণের বিষয়টি আন্তর্জাতিক, রাষ্ট্রীয়, সরকারি ও সংশ্লিষ্ট দেশের সকল নাগরিকসহ সকল অংশীজনের- এই মর্মে প্রচারণা ও অধিপরামর্শমূলক কার্যক্রম পালন করা এই দিবসটি উদ্যাপনের মূল লক্ষ্য। পুরো ধারণাপত্রের জন্য এখানে ক্লিক করুন ।  

    • Global Climate Strike

      To ensure a livable world for the future generation, hundreds of children and youth of Bangladesh called upon the world as well as Bangladeshi political and Government leaders, investors and funders to act responsibly bearing in mind the risks of survival of generations due to climate change and close down all coal-based power projects through gradually increasing use of renewable energy by 2030. Together with other specific demands, they further demanded that the global leaders must take necessary steps to implement the ‘Paris agreement’ without further delay to ensure committed compensation to the affected countries by the industrially developed polluter countries.  For details please follow the links below. Concept Paper (Bangla)
       

    • Workshop on Improved Access to Green Climate Fund - Designing Appropriate Project for Direct Access Entities and Executing Entities

      TIB organized a three-day long capacity-building workshop on “Improved Access to Green Climate Fund: Designing Appropriate Project for Direct Access Entities (DAEs) and Executing Entities (EEs)” on 22- 24 December 2018. The residential workshop was designed for potential GCF stakeholders in Bangladesh to increase their capacity to access GCF fund with special focus on (i) sharing the updated status of climate funds & challenges in accessing fund from GCF; (ii) building capacity of EEs to develop concept notes and detailed proposals; (iii) providing expert’s suggestion on the proposal to fix the conceptual and technical aspects to submit a robust project proposal to GCF; and (iv) creating a network among successful and potential DAEs, EEs and partners to exchange knowledge to guide in accessing GCF fund. The workshop also focused on the issues such as monitoring the implementation of climate change projects and advocating project implementing organizations to comply with fiduciary,...

    • Dhaka Integrity Dialogue-3: Equity and Transparency in Green Climate Funding

      The Green Climate Fund (GCF) is a global fund, created as a financial mechanism of the United Nations Framework Convention on Climate Change, to address the critical climate change mitigation and adaptation needs of developing nations. It aims to deliver equal amounts of funding to mitigation and adaptation, and the main purpose is to promote a paradigm shift to low-emission and climate resilient development, taking into account the needs of nations that are particularly vulnerable to climate change impacts. For full Concept Note please Click here.

       

    • TIB-TM Integrity Talk on Climate Finance Governance

      South Asian countries are amongst the most vulnerable to global climate change, with Bangladesh, the Maldives, Afghanistan, Pakistan, India, Sri Lanka predicted to be the worst affected.1 The Paris Agreement, adopted on 12 December 2015 and entered into force on 4 November 2016, saw 197 governments make commitments to limit the temperature rise and to protect the lives, livelihoods and economies of the people experiencing the effects of climate change.  The Agreement 2 reinforced the need for mobilizing increased finance to implement actions through cooperation, collaboration, participation and an “enhanced transparency framework”. Despite commitments by developed countries long before the Paris Agreement, to provide “new and additional” funds to less-developed and vulnerable countries at a rate of $100 billion a year for adaptation and mitigation of the effects of climate change, the financial flow to date has been far from adequate. For full Concept Note please Click here.

    • Dhaka Integrity Dialogue-2: Climate Finance and Governance in South Asia

      It is estimated that by 2050, 150 million people of the world may become environmentally displaced due to coastal flooding, river bank erosion, drought and agricultural inversion.1Though climate change is a global phenomenon, it has its regional dimension too. South Asia, as a region, is significantly susceptible to climate change induced risks and vulnerabilities. The Climate Risk Index 2017 ranks Bangladesh and two other South Asian countries2 are amongst 10 most vulnerable countries, affected by the impacts of weatherrelated loss (storms, floods, heat waves etc.)3. SDG13 is a pledge to strengthen resilience and human and institutional capacity on climate change mitigation, adaptation through effective integration of measures to combat climate change into national policies, planning and strategies  For full Concept Note please Click here....

    • Concept Note of South Asian Debate in CFPI project sight

      Increased transparency, accountability and integrity are pre-requisites to ensure effectiveness in the implementation of adaptation and mitigation actions to fight climate change. As developed countries pledged to provide ‘new and additional’ finance to cope  with adverse effect of climate change, the volume of climate finance is likely to increase for the use of developing countries which are at the receiving end of impact of climate change. On the other hand, countries that are adversely affected by global climate change also happen to be widely affected by governance deficit and corruption which may turn out to be a predicament against the expected level of climate funds to these countries.  Click Here for full Concept Note

       

    • World Environment Day 2016 Concept Note (Bangla)

      বিশ্ব পরিবেশ দিবস ২০১৬  “বন্যপ্রাণী ও পরিবেশ, বাঁচায় প্রকৃতি বাঁচায় দেশ” জীবন ও জীবিকার জন্য সবুজ পরিবেশ ও পরিবেশ-বান্ধব ধরিত্রীর প্রয়োজনীয়তা এবং জীবজগৎ ও প্রকৃতির সুরক্ষায় জনসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে ১৯৭৩ সাল থেকে বিশ্বব্যাপী প্রতিবছর ৫ জুন বিশ্ব পরিবেশ দিবস হিসেবে পালিত হয়ে আসছে। প্রতি বছরের ন্যায় বিশ্ব পরিবেশ দিবস ২০১৬ এর প্রতিপাদ্য হলো “বন্যপ্রাণী ও পরিবেশ, বাঁচায় প্রকৃতি বাঁচায় দেশ”। এর লক্ষ্য হলো ধরিত্রীর পরিবেশ, প্রতিবেশ এবং জীববৈচিত্র্য, বন ও বন্য প্রাণীকে সুরক্ষার মাধ্যমে বাসযোগ্য বিশ্ব গড়তে মানুষকে ব্যাপকভাবে সচেতন করা। উল্লেখ্য, ২০৩০ টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রার অন্যতম লক্ষ্য হলো, পরিবেশ ও প্রতিবেশ রক্ষার মাধ্যমে বিশ্বকে বাসযোগ্য হিসাবে গড়ে তোলা। সুনির্দিষ্টভাবে লক্ষ্য ১৫ এর মাধ্যমে জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ, বন উজাড় রোধ করার মাধ্যমে মরুকরণ রোধ এবং ভূমি ক্ষয় হ্রাসে জোর প্রদান করা হয়েছে। পুরো ধারণাপত্রের জন্য এখানে ক্লিক করুন ।

    • বিশ্ব স্বাস্থ্য দিবস ২০১৬-এর ধারণাপত্র

      প্রতি বছর ৭ এপ্রিল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)’র প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে পালিত হয় বিশ্ব স্বাস্থ্য দিবস। এ বছর বিশ্ব স্বাস্থ্য দিবস এর প্রতিপাদ্য ‘ডায়াবেটিস প্রতিরোধ’ (Beat Diabetes)। প্রতিবারের মতো এবারও বাংলাদেশ সরকার বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সাথে একাত্মতা পোষণ করে ৭ এপ্রিল, বিশ্ব স্বাস্থ্য দিবস ২০১৬ উদযাপন করছে। এবারের স্বাস্থ্য দিবসে পরিস্থিতি ও ভয়াবহতা বিবেচনায় ডায়াবেটিস ও এ সংক্রান্ত স্বাস্থ্য জটিলতা ও এর ফলাফল, প্রতিরোধ এবং এ বিষয়ক নজরদারি বৃদ্ধির বিষয় গুরুত্বসহকারে তুলে ধরা হয়েছে। এ দিবসের মধ্য দিয়ে ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে পরিমিত খাদ্য গ্রহণ, সাধ্যমত কায়িক শ্রম ও ব্যায়াম, ওষুধ এবং এ বিষয়ে জনসচেতনতা তৈরির পাশাপাশি জীবনযাপনে ইতিবাচক পরিবর্তন আনতে সুনির্দিষ্ট ও কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণের আহবান জানানো হয়েছে। ধারণাপত্র এখানে

    << < 1 2 3 > >> (3)

Paper List