• header_en
  • header_bn

 

Corruption increases poverty and injustice. Let's fight it together...now

 

Policy Brief by year


  • Policy Brief

    • Policy Brief on Insurance (Bangla)

      বীমা খাতের সার্বিক উন্নয়ন ও এ খাতকে যুগোপযোগী করার লক্ষ্যে ‘বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ’ সাম্প্রতিক সময়ে কিছু পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে, এর মধ্যে রয়েছে বীমা দাবি দ্রুত নিষ্পত্তির জন্য অভ্যন্তরীণ কমিটি গঠন, বীমা খাতে জাতীয় শুদ্ধাচার কৌশল বাস্তবায়নে কর্ম পরিকল্পনা গ্রহণ, বীমাসেবার সর্বস্তরে বাংলা ভাষা প্রচলন, জাতীয় ও বিভাগীয় পর্যায়ে বীমা মেলার আয়োজন, এজেন্টদের প্রশিক্ষণ বাধ্যতামূলক করা, বীমা একাডেমীকে ট্রেনিং ইন্সটিটিউটে পরিণত করার কর্ম পরিকল্পনা গ্রহণ, প্রিমিয়াম জমা ও বীমা দাবি গ্রহণসহ ৫,০০০ টাকার অধিক সকল লেনদেন ব্যাংকের মাধ্যমে বাধ্যতামূলক করা, অর্থ পাচার ও সন্ত্রাসে অর্থায়ন বন্ধে উদ্যোগ গ্রহণ এবং বীমা আইন লঙ্ঘনকারী কোম্পানিকে শুনানীর মাধ্যমে শাস্তির বিধান করা। ফলে বীমা খাতে ইতিবাচক পরিবর্তন এসেছে এবং বীমা খাতকে আগের চেয়ে বেশি কার্যকর হওয়ার সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে। পলিসি ব্রিফ এখানে

    • Policy Brief on Local Government Institutions (Bangla)

      স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানের সার্বিক উন্নয়নের জন্য সম্প্রতি বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে অধিকাংশ ক্ষেত্রে নিয়মিত নির্বাচন সম্পন্ন করা, স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠান-সংশ্লিষ্ট আইনগুলোর সংস্কার, প্রতিটি ইউনিয়ন পরিষদে তথ্যসেবা কেন্দ্র স্থাপন, অন-লাইন জন্ম নিবন্ধনের কার্যক্রম গ্রহণ, ইউনিয়ন পরিষদসহ অন্যান্য স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানে বার্ষিক উন্নয়ন বরাদ্দ নিয়মিত পৌঁছানোর ব্যবস্থা, ইউনিয়ন পরিষদগুলোতে নিরীক্ষা কার্যক্রমে গতিশীলতা ও স্বচ্ছতা আনয়নের লক্ষ্যে বেসরকারি নিরীক্ষা সংস্থাকে দায়িত্ব প্রদান, তথ্য অবমুক্তকরণ নীতিমালা ২০১৫ প্রণয়ন ইত্যাদি। যার ফলশ্রুতিতে স্থানীয় সরকার পদ্ধতিতে ইতিবাচক পরিবর্তন এসেছে এবং স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানসমূহ আগের থেকে বেশি কার্যকর হবার সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে। পলিসি ব্রিফ এখানে।

    • Policy Brief on Drug Administration (Bangla)

      ওষুধ খাতের সুষ্ঠু বিকাশ, মানসম্মত উৎপাদন এবং সহজলভ্যতা নিশ্চিতকরণে ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তর মুখ্য ভূমিকা পালন করে থাকে। এ অধিদপ্তরের সক্ষমতা বৃদ্ধি এবং ভেজাল ও নকল ওষুধ নিয়ন্ত্রণে সাম্প্রতিককালে সরকারিভাবে বেশকিছু উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। এগুলোর মধ্যে ওষুধ প্রশাসনকে পরিদপ্তর হতে অধিদপ্তরে উন্নীতকরণ, মাঠ পর্যায়ে জনবল বৃদ্ধি এবং নকল ও ভেজাল ওষুধ প্রতিরোধে বিভিন্ন সময়ে অভিযান জোরদারকরণসহ স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সুপারিশ বাস্তবায়নে পদক্ষেপ গ্রহণ উল্লেখযোগ্য। তবে এ সকল উদ্যোগ সত্ত্বেও ওষুধ নিয়ন্ত্রণ ও তদারকিতে সুশাসনের ঘাটতি এখনও লক্ষণীয়। বিভিন্ন সময়ে ভেজাল ও নিম্নমানের ওষুধ নিয়ন্ত্রণে ওষুধ প্রশাসনের দুর্বল তদারকি এবং ব্যবস্থাপনাগত ঘাটতির কারণে জনস্বাস্থ্য হুমকির সম্মুখীন হয়েছে। পলিসি ব্রিফ এখানে।

    • Policy Brief on LR Fund (Bangla)

      জাতীয় ও তৃণমূল পর্যায়ে নাগরিকদের দুর্নীতির বিরুদ্ধে সচেতন ও সক্রিয় করা এবং দেশে দুর্নীতিবিরোধী চাহিদা সৃষ্টির লক্ষ্যে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) ১৯৯৬ সাল থেকে বহুবিধ গবেষণা, প্রচারণা, অ্যাডভোকেসি ও জনসম্পৃক্ততামূলক কার্যক্রম বাস্তবায়ন করছে। জাতীয় পর্যায়ে নিবিড় অ্যাডভোকেসি কার্যক্রম গ্রহণ এবং স্থানীয় পর্যায়ে বিস্তৃত নাগরিক সম্পৃক্ততার মাধ্যমে ‘বিল্ডিং ইন্টেগ্রিটি ব্লকস ফর ইফেক্টিভ চেইঞ্জ’ প্রকল্পটি জাতীয় ও স্থানীয় পর্যায়ে বিদ্যমান নীতি, আইন ও নিয়ম-কানুন কার্যকর প্রয়োগের ক্ষেত্রে ক্রমাগত প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। টিআইবি এমন এক বাংলাদেশ দেখতে চায় যেখানে সরকার, রাজনীতি, ব্যবসা-বাণিজ্য, নাগরিক সমাজ ও সাধারণ মানুষের জীবন হবে দুর্নীতির প্রভাব থেকে মুক্ত। এ লক্ষ্যে নীতি ও প্রাতিষ্ঠানিক সংস্কার অনুঘটনে টিআইবি গবেষণা কার্যক্রম ও তার ভিত্তিতে কার্যকর নীতি প্রণয়নে অ্যাডভোকেসি ও নাগরিক সম্পৃক্তামূলক কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে। এরই অংশ হিসেবে ধারাবাহিক ও সমসাময়িক বিভিন্ন বিষয়ের ওপর টিআইবি পলিসি ব্রিফ প্রণয়ন করে থাকে। এখানে ক্লিক করুন।

    • Policy Brief on CAG (Bangla)

      জাতীয় শুদ্ধাচার ব্যবস্থা তথা সুশাসন ও গণতান্ত্রিক জবাবদিহিতার প্রাতিষ্ঠানিক কাঠামোর অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ স্তম্ভ মহা হিসাব নিরীক্ষক ও নিয়ন্ত্রকের কার্যালয় (ওসিএজি)। সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠান হিসেবে এটি বাংলাদেশ সরকারের অর্থ-ব্যবস্থাপনায় স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা প্রতিষ্ঠা এবং আর্থিক অনিয়ম-দুর্নীতি প্রতিরোধে অতীব গুরুত্বপূর্ণ কার্যক্রম পরিচালনা করে থাকে। সিএজি কার্যালয়ের সক্রিয় সহযোগিতায় ২০১৫ সালে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) এই কার্যালয়ের ওপরে একটি গবেষণা কার্যক্রম সম্পন্ন করে, যার প্রতিবেদন ২৯ জানুয়ারি ২০১৫ তারিখ প্রকাশিত হয়। উক্ত গবেষণায় সিএজি কার্যালয়ের বিভিন্ন আইনগত ও প্রাতিষ্ঠানিক সীমাবদ্ধতা এবং বিদ্যমান সুশাসনের ঘাটতিসহ অনিয়ম-দুর্নীতির তথ্য উঠে আসে। এ প্রেক্ষিতে এই পলিসি ব্রিফের মাধ্যমে টিআইবি সংশ্লিষ্ট অংশীজনের বিবেচনার জন্য সুপারিশ উপস্থাপন করছে। এখানে ক্লিক করুন।

    • Policy Brief on Passport Services (Bangla)

      পাসপোর্ট সেবা একটি জনগুরুত্বপূর্ণ সেবাখাত হিসেবে বিবেচিত। জনশক্তি রপ্তানি, ব্যবসা বাণিজ্যের প্রসার এবং বিদেশ ভ্রমণে অপরিহার্য ভূমিকা পালনকারী এ খাতকে জনমুখী ও সহজীকরণে সাম্প্রতিককালে বেশ কিছু পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। এসব পদক্ষেপ অনেকক্ষেত্রেই ২০০৬ সালে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) প্রণীত ‘পাসপোর্ট সেবা: একটি ডায়াগনস্টিক স্টাডি’ শীর্ষক গবেষণা প্রতিবেদনের সুপারিশমালার সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ। এগুলোর মধ্যে পাসপোর্ট সেবা বিকেন্দ্রীকরণ: জেলা পর্যায়ে পাসপোর্ট অফিস স্থাপন, অবকাঠামোগত উন্নয়ন ও জনবল বৃদ্ধি, পাসপোর্ট সেবায় ডিজিটাইজেশন: অনলাইনে আবেদনপত্র গ্রহণ, মেশিন রিডেবল পাসপোর্ট প্রবর্তন, ওয়ান স্টপ সার্ভিস চালু, বেসরকারি ব্যাংক ও পোস্ট অফিসকে ফি জমাদানে অন্তর্ভুক্তকরণ এবং অতিসম্প্রতি দেশব্যাপী পাসপোর্ট সেবা সপ্তাহ পালন ও জেলা পর্যায়ের অফিসগুলোতে গণশুনানীর আয়োজন উল্লেখযোগ্য। এসব পদক্ষেপের ফলে পাসপোর্ট সেবা খাতে উল্লেখযোগ্য ইতিবাচক পরিবর্তন ঘটেছে, তা স্বত্ত্বেও এখনও পর্যন্ত পাসপোর্ট সেবায় নানাবিধ সমস্যা ও চ্যালেঞ্জ বিদ্যমান। অন্যদিকে ইতিবাচক পরিবর্তনের ধারা অব্যাহত রাখা সম্ভব...

    • Policy Brief on Land Governance (Bangla)

      ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) ‘ভূমি ব্যবস্থাপনা ও সেবা কার্যক্রম: সুশাসনের চ্যালেঞ্জ ও উত্তরণের উপায়’ শীর্ষক একটি গবেষণা প্রতিবেদন ২০১৫ সালের ২৩ আগস্ট প্রকাশ করে। পরবর্তীতে ২০১৬ সালের ২৯ ফেব্রুয়ারিতে টিআইবি স্থানীয় পর্যায়ের অভিজ্ঞতা ও চ্যালেঞ্জের সাথে জাতীয় পর্যায়ের উদ্যোগের যোগসূত্র স্থাপনের লক্ষ্যে ‘ভূমি খাতে সুশাসনের চ্যালেঞ্জ ও উত্তরণের উপায়’ শীর্ষক একটি পরামর্শ সভার আয়োজন করে। উপরোল্লিখিত গবেষণার ফলাফল ও পরামর্শ সভার আলোচনা হতে প্রাপ্ত মতামতের ভিত্তিতে দেশের ভূমি ব্যবস্থাপনা ও সেবা কার্যক্রমে চিহ্নিত চ্যালেঞ্জের প্রেক্ষিতে জনগুরুত্বপূর্ণ এই খাতে সুশাসন প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের বিবেচনার জন্য এই পলিসি ব্রিফ উপস্থাপন করা হচ্ছে। পলিসি ব্রিফ এখানে।

    • কপ-২১ প্যারিস সম্মেলন উপলক্ষে জলবায়ু অর্থায়নে স্বচ্ছতা এবং জবাবদিহিতা নিশ্চিতে টিআইবি’র দাবি

      প্রত্যাশা ছিল কপ-২০ লিমা সম্মেলনে শিল্পোন্নত দেশসমূহ কার্বন নিঃসরণের মাত্রা হ্রাসে আইনী বাধ্যবাধকতায় চুক্তির খসড়া প্রকাশ করবে কিন্তু বাস্তবে তা হয়নি, উল্টো শিল্পোন্নত দেশসমূহ অবশ্য করণীয় নিঃসরণ হ্রাসকে প্রভাব খাটিয়ে স্বেচ্ছাধীন রাখার জন্য লিমায় গৃহীত সমঝোতা স্মারকের ৮নং ধারা যুক্ত করে প্রতিটি দেশের স্বেচ্ছায় নির্ধারণের ওপর ছেড়ে দিতে চুক্তির ভাষা পরিবর্তন করে দায়কে অনুকম্পার বিষয়ে পরিণত করেছে। এ প্রেক্ষিতে জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবে প্রকৃত ক্ষতির মাত্রা আরো বেশি হতে পারে যদি কপ-২১ প্যারিস সম্মেলনে প্রস্তাবিত আইনী বাধ্যতার মধ্যে সর্বোচ্চ কার্বন নিঃসরণকারী দেশগুলোর প্রতিশ্রুতি, স্বচ্ছতা এবং জবাবদিহিতা নিশ্চিত করা সম্ভব না হয়। পলিসি ব্রিফ এখানে

    • Policy brief on Parliament

      One of the key strategic areas of TIB’s research has always been the institutions of democracy and specialized pillars of governance and accountability, which constitute the National Integrity System (NIS), a collective of institutions and practices that are crucial to maintaining integrity and accountability in government, non-government and private sector. The NIS in Bangladesh broadly consists of the following institutions: Parliament, Executive, Judiciary, Public Administration (bureaucracy), Local Government, Police (law enforcement agency), Comptroller and Auditor General (supreme audit institution), Election Commission, Anti-Corruption Commission, National Human Rights Commission, Information Commission, Political Parties, Civil Society, Media and Business. Click here for Policy brief on Parliament

    • Policy brief on Executive

      One of the key strategic areas of TIB’s research has always been the institutions of democracy and specialized pillars of governance and accountability, which constitute the National Integrity System (NIS), a collective of institutions and practices that are crucial to maintaining integrity and accountability in government, non-government and private sector. The NIS in Bangladesh broadly consists of the following institutions: Parliament, Executive, Judiciary, Public Administration (bureaucracy), Local Government, Police (law enforcement agency), Comptroller and Auditor General (supreme audit institution), Election Commission, Anti-Corruption Commission, National Human Rights Commission, Information Commission, Political Parties, Civil Society, Media and Business. Click here for Policy brief on Executive  

       

    << < 1 2 3 4 > >> (4)

Policy Brief List